বিশালাক্ষী সতীপীঠ, ৫১ সতীপীঠ পর্ব – ৬

মার্চ ১৯, ২০২২ রাত ০৯:৪১ IST
6235fe50ab959_bishalakkhi

বিশালাক্ষী সতীপীঠ

বিশালাক্ষী সতীপীঠ মন্দির উত্তরপ্রদেশের বারাণসী বা বেনারসে । এই মন্দির একটি পবিত্র স্থান এবং ৫১ শক্তিপীঠের অন্যতম পীঠস্থান । পুরাণ মতে দেবী সতীমায়ের কানের দুল বা চোখ পড়েছিল ।

ইতিহাস – পৌরাণিক তথ্য অনুসারে সত্য যুগের কোনও এক সময়ে মহাদেবের উপর প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য দক্ষরাজ এক মহাযজ্ঞের আয়োজন করেছিলেন । দক্ষরাজের কন্যা সতী দেবী তাঁরই ইচ্ছার বিরুদ্ধে 'যোগী' মহাদেবকে বিবাহ করায় দক্ষরাজ নিজের কন্যার প্রতি ক্ষুব্ধ ছিলেন । দক্ষরাজ মহাদেব ও সতী দেবীকে ছাড়া তাঁর অনুষ্ঠিত মহাযজ্ঞে প্রায় সকল দেব-দেবীকেই নিমন্ত্রণ করেছিলেন । মহাদেবের অনিচ্ছা সত্ত্বেও সতী দেবী মহাদেবের অনুসারীদের সঙ্গে নিয়ে সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন । কিন্তু সতী দেবী আমন্ত্রিত অতিথি না হওয়ায় তাঁকে চরম অপমানিত করেন দক্ষরাজ । শুধু এই নয় সতী দেবীকে সামনে রেখে দক্ষরাজ মহাদেবের নিন্দা করেন ভরা সভায় । সতী দেবী তাঁর স্বামীর প্রতি পিতার এহেন অপমান সহ্য করতে না পেরে যোগবলে আত্মাহুতি দেন । শোকাহত মহাদেব রাগান্বিত হয়ে দক্ষরাজের যজ্ঞ নষ্ট করেন এবং সতী দেবীর মৃতদেহ কাঁধে নিয়ে বিশ্বব্যাপী তান্ডব নৃত্য শুরু করেন । এই তান্ডব নৃত্যের কারণে ধ্বংসলীলা শুরু হয় সমগ্র বিশ্বে । প্রলয় থামাতে ভগবান বিষ্ণু দেবী সতী মায়ের দেহ সুদর্শন চক্রের সাহায্যে খন্ডিত করেন । সেই দেহখন্ড ভারতীয় উপমহাদেশের বিভিন্ন স্থানে পড়ে, এবং স্থানগুলো পরবর্তীতে পবিত্র পীঠস্থান তথা শক্তিপীঠ হিসেবে পরিচিত হয় । উত্তরপ্রদেশের বারাণসী বা বেনারসের এই স্থানে দেবী সতীমায়ের কানের দুল বা চোখ পড়েছিল । তাই এই পীঠস্থান নাম বিশালাক্ষী সতীপীঠ । 

বর্তমানে- বিশালাক্ষী মন্দিরের তাৎপর্য বিশালাক্ষী মাকে পূজা দেওয়ার ঠিক আগে ভক্তরা গঙ্গার পবিত্র জলে স্নান করেন । ভক্তরা বিশ্বাস করেন যে দেবীকে পূজা, জল দেওয়া, গান জপ করা এগুলোতে দেবী সন্তুষ্ট হন । কাজলী তিজ, ভারতীয় মহিলাদের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হিন্দু উৎসব, বিশালাক্ষী মন্দিরে খুব আনন্দের সাথে পালিত হয় । ভক্তরা অক্টোবর মাসে এই মন্দিরে নবরাত্রি উদযাপন করার পাশাপাশি মহিষাসুরে উপর দেবী দুর্গার বিজয় উদযাপন করে । তারা চৈত্র মাসে আলাদা নবরাত্রি উদযাপন করে । প্রতি ৯ দিনে তারা নবদুর্গার নয়টি আলাদা রূপের দুর্গার পূজা করে । বিশালাক্ষী মন্দিরটি প্রতিদিন সকাল ৫ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত খোলা থাকে । 

কিভাবে যাবেন?

শ্রী কাশী বিশালাক্ষী মাতা শক্তিপীঠ মন্দির, গণপতি গেস্ট হাউস মীর ঘাটের কাছে কাশী লাহোরি টোলা, বারাণসী, উত্তর প্রদেশ ২২১০০১ ।

ভিডিয়ো