নবদ্বীপের ভঙ্গরাস উৎসব যা বর্তমানে শাক্তরাস হিসেবে পালিত হচ্ছে

নভেম্বর ০৭, ২০২২ বিকাল ০৬:৫০ IST
636905bb60fee_ras bhog

অমৃতবাজার এক্সক্লুসিভ, স্নেহা কুন্ডু - রাস মূলত কৃষ্ণের ব্রজলীলার অনুকরণে বৈষ্ণবীয় ভাবধারায় অনুষ্ঠিত ধর্মীয় উৎসব। তবে নবদ্বীপের রাস প্রধানত শাক্ত রসাশ্রিত।পুরাণে রাস উৎসবের উল্লেখ পাওয়া যায়। তবে বিভিন্ন পুরাণে বিভিন্ন মতেরও উল্লেখ আছে। কোথাও শারদ রাস আবার কোথাও বসন্ত রাসের উল্লেখ পাওয়া যায়।


রাসের মাহাত্ম্য - " রাস" কথার অর্থ হলো আনন্দ, দিব্য অনুভূতি, দিব্য প্রেম বা সার, নির্যাস, আনন্দ, আহ্লাদ, অমৃত ও ব্রহ্ম।ভগবান শ্রীকৃষ্ণের তাত্ত্বিক রসে সমৃদ্ধ আধ্যাত্মিকতার সুখানুভূতি এই উৎসবের বিষয়বস্তু। যা শ্রীকৃষ্ণ, শ্রীরাধা ও গোপিনীদের মধ্যেকার লীলা খেলা।


কথিত আছে, ছেলেবেলায় যমুনা নদীতে কৃষ্ণ যখন খেলার ছলে গোপিনীদের বস্ত্রহরণ করেছিলেন তখন তিনি গোপিনীদের কাছে প্রতিজ্ঞা করেছিলেন যে পরবর্তী পূর্ণিমা তিথিতে তিনি তাঁদের সঙ্গে রাসলীলা করবেন। কৃষ্ণের মধুর বাঁশির শব্দ শুনে মুগ্ধ গোপিনীরা নিজেদের কর্তব্য বিসর্জন দিয়ে সংসারের মোহ ত্যাগ করে বৃন্দাবনে উপস্থিত হয়েছিলেন।শ্রী কৃষ্ণের সংস্পর্শ পেয়ে গোপিনীদের মন অহং পূর্ণ হলে শ্রীকৃষ্ণ অন্তর্হিত হন। গোপিনীরা তখন নিজেদেরকে শ্রীকৃষ্ণের চরণে সমর্পণ করেছিলেন। শ্রীকৃষ্ণ তাঁদের গৃহে ফিরে যেতে বললেও তাঁরা ফিরে যাননি। তাঁদের ভক্তিতে সন্তুষ্ট হয়ে এরপর শ্রীকৃষ্ণ গোপিনীদের অন্তর পরিষ্কার করেন। ভুল বুঝতে পেরে শ্রীকৃষ্ণের স্তব স্তুতি করলে শ্রীকৃষ্ণ প্রত্যাবর্তন করে গোপিনীদের মানব জীবনের পরমার্থ বুঝিয়ে অন্তরাত্মা শুদ্ধ করেন।এই রূপেই রাস উৎসবের প্রচলন ঘটে।


পশ্চিমবঙ্গে রাস উৎসবগুলোর মধ্যে নবদ্বীপের রাস অন্যতম। এখানকার রাসের বিশেষত্ব হল বিশাল আকারের মূর্তি। কথিত আছে, অদ্বৈতাচার্য শান্তিপুরে ও শ্রীচৈতন্যদেব নবদ্বীপে রাস উৎসবের সূচনা করেছিলেন। শ্রীমদ্ভাগবত এবং বিষ্ণপুরাণে শারদ রাসের কথা আছে। তেমনই ‘হরিবংশ’ এবং ভাসের বালচরিত গ্রন্থেও গোপিনীদের সঙ্গে শ্রীকৃষ্ণের হল্লীশ নৃত্যের কথা আছে। শাস্ত্রে ও পুরাণে পাঁচ রকম রাসনৃত্যের কথা রয়েছে। সেগুলো হল মহারাস, বসন্ত রাস, কুঞ্জ রাস, দিব্য রাস ও নিত্য রাস।


নবদ্বীপের রাস উৎসব - শাক্তরাস নবদ্বীপের প্রধান উৎসব।শরৎকালে শারদোৎসবের পরেই উৎসবের প্রস্তুতি শুরু হয় উৎসবের প্রস্তুতি এবং কার্তিকীপূর্ণিমায় নবদ্বীপের এই লোকায়ত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।জনশ্রুতি প্রচলিত আছে, নবদ্বীপে চৈতন্যদেব রাধাকৃষ্ণের রাস উৎসবের সূচনা করেছিলেন। সেই হিসাবে ষোড়শ শতাব্দীর প্রারম্ভেই রাসের সূচনা হয়েছিল। তবে চৈতন্যদেবের সন্ন্যাস গ্রহণের পর নবদ্বীপের বৈষ্ণব আন্দোলন স্তিমিত হয়ে পড়ে। গৌরাঙ্গ-পরিজনেরা বাধ্য হয়ে নবদ্বীপ ত্যাগ করে স্থানান্তরে গমন করেন। ফলে বৈষ্ণবীয় উৎসব অনুষ্ঠানের ধারাবাহিকতায় ছেদ পড়ে।


ষোড়শ শতাব্দীর প্রারম্ভে পূর্ববঙ্গ থেকে আগত মুষ্টিমেয় ভক্তিবাদীদের হাতে যখন বৈষ্ণবীয় ভক্তি আন্দোলন দানা বাঁধে তখন কৌলাচারী তন্ত্রসাধকদের সঙ্গে এদের শুরু হয় সংঘাত। প্রায় তিনশো বছর এই দুই সম্প্রদায়ের দ্বন্দ্ব ছিল অব্যাহত।


নবদ্বীপের রাসেও পড়েছিল এর অনিবার্য প্রভাব। আজকের বাতাবরণ সম্পূর্ণ আলাদা, আজ কোনো কুটিল দ্বন্দ্ব আবিলতা নেই।


রাজা কৃষ্ণচন্দ্রের (১৭২৮-১৭৮২ খ্রী) পৃষ্ঠপোষকতায় নবদ্বীপের শাক্ত রাসের প্রভূত উন্নতি হয়েছিল, সেই সময় রাজ পোষকতায় নানা পূজা হয় এবং রাজার নাম সংকল্প করা হত।
কথিত আছে, প্রখ্যাত পণ্ডিত শঙ্কর তর্কবাগীশ (জন্ম, আনুমানিক ১৭১৭ খ্রি.) যখন রাজসভার সভাপণ্ডিত তখন এলানিয়া কালী পূজার প্রবর্তন হয়েছিল। এটিকেই নবদ্বীপ রাস পূর্ণিমা শাক্ত মূর্তি হিসাবে ধরা হয়।


মহারাজ কৃষ্ণচন্দ্র ভৃগুরামকে ১২০০ বিঘা জমি দান করেন। ভৃগুরামের তিন পুত্র এখানে বসতি স্থাপন করলে এই অঞ্চলের নাম হয় তেঘরি। ভৃগুরামের জ্যেষ্ঠ পুত্র গদাধর তেঘরিপাড়ায় বড়শ্যামা মাতার পূজা প্রতিষ্ঠা করেন।


শোনা যায় সেই সময়ে চারিচারপাড়ায় ভদ্রকালী পূজার সূচনা হয় মহারাজ কৃষ্ণচন্দ্রের প্রত্যক্ষ অনুপ্রেরণায়। শোনা যায়, সেকালে রাজবাড়ি থেকে পূজা আসত, তা মহারাজের নামে সংকল্প করা হতো।


কথিত আছে, মহারাজা কৃষ্ণচন্দ্রের আমন্ত্রণে মৃৎশিল্পীরা নাটোর থেকে নবদ্বীপে আসেন। মোহিত রায় জানিয়েছেন, "কৃষ্ণনগরের মৃৎশিল্পীরা ইংরেজ রাজপুরুষদের পোষকতায় বিকাশ লাভ করেছিল।" পটপূজার সময় অতিক্রমণের পর ক্রমে মৃন্ময়ী মূর্তিপূজোর প্রচলন হয়। তখন লোকমুখে রাস উৎসব ‘রাসকালী” পূজা নামে পরিচিত ছিল। তারপর থেকে বিশাল বিশাল মূর্তি নির্মাণে নবদ্বীপের শিল্পীদের অসাধারণ দক্ষতা কিংবদন্তিতে পরিণত হয়েছে। সেই সব নবদ্বীপের খ্যাতিমান মৃৎশিল্পীরা হলেন – সন্দু পাল, ফন্তে পাল, বেঁটে পাল, পাল, নানু পাল, বিজন পাল প্রমুখ।


নবদ্বীপ রাসে শতাধিক বছরের প্রাচীন যে সকল শাক্ত দেবী পূজিত হয়, সেই সকল প্রতিমার উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হল চালচিত্রের প্রয়োগ।কালী মূর্তির মধ্যে গৌরাঙ্গিনী মাতা, মহিষমর্দিনী, ভদ্রকালী, নৃত্যকালী, শবশিবা মাতা প্রভৃতি বিখ্যাত। কথিত আছে আনুমানিক প্রায় ৩০০০ এরও বেশী দেব দেবী কে এই রাস উৎসবে পুজো করা হয়। এছাড়াও থাকে নানা মিস্টান্ন ও অন্ন ভোগ ।

আরও পড়ুন

নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজে সমতায় ফিরল ভারত
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

ভারত - ১০১/৪ (১৯.৫)
নিউজিল্যান্ড - ৯৯/৮ (২০)

রাশিফল, সোমবার, ১৫ই মাঘ, ১৪২৮, ৩০শে জানুয়ারি, ২০২৩
জানুয়ারী ৩০, ২০২৩

একনজরে দেখুন রাশি অনুযায়ী কেমন কাটবে আপনার দিন

#UPDATE চিকিৎসকদের চেষ্টা বৃথা , পুলিশের গুলিতে মৃত্যু ওড়িশার স্বাস্থ্যমন্ত্রীর
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

ইতিমধ্যেই তদন্তের দায়িত্ব নিয়েছে রাজ্য পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ

প্রজাতন্ত্র দিবসের বিটিং দ্য রিট্রিটে চোখ ধাঁধানো ড্রোন ও লেজার শো
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

বিটিং দ্য রিট্রিটের অনুষ্ঠানে ছিল একাধিক চমক  

পচেস্ট্রুমে উড়ল তেরঙ্গা, বঙ্গতনয়ার দাপটে মেয়েদের অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন ভারত
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

ভারত - ৬৯/৩ (১৪)
ইংল্যান্ড - ৬৮ (১৭.১)

দেড় মাস আগের রহস্যজনক খুনের কিনারা করলো পুরুলিয়া থানার পুলিশ , গ্রেফতার ১
জানুয়ারী ৩০, ২০২৩

ব্যবসায়ীক মতবিরোধের জেরেই খুন , স্বীকারোক্তি খোদ হত্যাকারীর

গোলাবাড়িতে শাসক দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব , জখম ৫
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

কিছুমানুষ দলকে কালিমালিপ্ত করার জন্য সর্বদাই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে , দাবি তৃণমূলের

সিংহাসনে প্রত্যাবর্তন রাজার, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে চ্যাম্পিয়ন জোকোভিচ
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

ম্যাচের শেষে ফলাফল ৬-৩, ৭-৬ (৭-৪), ৭-৬ (৭-৫)
 

তৃণমূলের দলীয় পতাকা ছিঁড়ে নর্দমায় ফেলার অভিযোগ , তীব্র উত্তপ্ত বেড়াচাঁপা
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

তৃণমূলের পতাকা ছেড়ার অভিযোগ আইএসএফের বিরুদ্ধে

অনেক কষ্টে মানুষ করেছিল , চাকরি পেতেই মাকে সিঙ্গাপুর ঘোরালেন ছেলে
জানুয়ারী ৩০, ২০২৩

গ্রামের বাইরেই পা রাখেনি , সেই মাকে গোটা সিঙ্গাপুর ঘোরালেন ছেলে

দিনহাটার ২ নম্বর ব্লকজুড়ে শেয়ালের তান্ডব , আহত ৪
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

দুজনের অবস্থা অতি আশঙ্কাজনক , ইতিমধ্যেই বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন বন বিভাগ

ভীমপুর থানার দুষ্কৃতী বিরোধী অভিযান , উদ্ধার একটি এমএম পিস্তল সহ দু রাউন্ড গুলি
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

গ্রেফতার ১ দুষ্কৃতী

এমপি হওয়ার পর মন্ত্রী হবো , ভোটের প্রচার থেকে দাবি হিরোর
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

আপনাদের আশীর্বাদে আমি এমপি হয়ে আসলে অবশ্যই এখানকার উন্নতির চেষ্টা করব , আশ্বাস হিরো আলমের

আওয়ামী লীগ পালায় না , মানুষের সঙ্গেই থাকে , দাবি হাসিনার
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

একদিনে ১০০ সেতু , ১০০ সড়ক কোনো সরকার করতে পেরেছে , দেশবাসীর কাছে দাবি হাসিনার

ডোমকলে প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দল , পঞ্চায়েত প্রধানের স্বামীর বিরুদ্ধে মারে মাথা ফটলো কর্মীর
জানুয়ারী ২৯, ২০২৩

ইতিমধ্যেই অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা সহ ৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ

ভিডিয়ো